//
you're reading...
www.facebook.com

ভৌগলিক প্রোফাইল

বাংলাদেশের সর্ব দক্ষিণে ২১ ডিগ্রী 50 মিনিট 05সেকেন্ড হতে ২৩ ডিগ্রী 04 মিনিট 10 সেকেন্ড উত্তর অক্ষাংশ এবং ৮৯ ডিগ্রী 59মিনিট 50 সেকেন্ড হতে ৯১ ডিগ্রী 04 মিনিট৮৮ সেকেন্ড পূর্ব দ্রাঘিমাংশের মধ্যবর্তী স্থানে সমুদ্রতল হতে 11©©© ©উচ্চে বরগুনা জেলা অবস্থিত। বরগুনা জেলার উত্তরে ঝালকাঠী,বরিশাল,পিরোজপুর ও পটুয়াখালী জেলা, দক্ষিণে পটুয়াখালী জেলা ও বঙ্গোপসাগর, পূর্বে পটুয়াখালী জেলা, পশ্চিমে পিরোজুর ও বাগেরহাট জেলা। জেলার উল্লেখযোগ্য নদী গুলো হলো পায়রা,বিষখালী ও বলেশ্বর। এখানকার বার্ষিক গড় তাপমাত্রা ৩৩.৩ ডিগ্রী সেলসিয়াস এবং সর্বনিম্ন তাপমাত্রার পরিমান ১২.১ ডিগ্রী সেলসিয়াস। জেলার বার্ষিক বৃষ্টিপাতের পরিমাণ ২৫০৬ মিঃমিঃ।

 

বরগুনা নামের ইতিহাসের সুনির্দিষ্ট কোন তথ্য না পাওয়া গেলেও জানা যায় যে,উত্তরাঞ্চলের কাঠ ব্যবসায়ীরা এতদ্ঞ্চলে কাঠ নিতে এসে খরস্রোতা খাকদোন নদী অতিক্রম করতে গিয়ে অনুকুল প্রবাহ বা বড় গোনের জন্য এখানে অপেক্ষা করত বলে এ স্থানের নাম বড় গোনা। কারো মতে আবার স্রোতের বিপরীতে গুন(দরি)টেনে নৌকা অতিক্রম করতে হতো বলে এ স্থানের নাম বরগুনা। কেউ কেউ বলেন ,বরগুনা নামক কোন প্রতাপশালী রাখাইন অধিবাসীর নামানুসারে বরগুনা ।আবার কারো মতে বরগুনা নামক কোন এক বাওয়ালীর নামানুসারে এ স্থানের নামকরণ করা হয় বরগুনা।

 

সাগর উপকূলীয় জেলা বরগুনার সাথে আন্তঃজেলা এর অভ্যন্তরীণ যোগাযোগ ব্যবস্থা খুব একটা উন্নত নয়। সড়ক পথে যোগাযোগের ক্ষেত্রে বিভিন্ন স্থানে ফেরী পারাপার থাকায় যোগাযোগ বেশ সময় সাপেক্ষ। নদী পথে যোগাযোগ ব্যবস্থা বিদ্যমান থাকলেও সময় মত কাঙ্খিতমানের পার্যাপ্তর নৌ-যান পাওয়া যায়না।

 

বরগুনা সদর থেকে সড়ক পথে পায়রা,লেবুখালী ও কির্তনখোলা নদী ফেরী পারাপারের মাধ্যমে পটুয়াখালী হয়ে বরিশাল বিভাগীয় শহরে পৌছান যায়। এ পথের মোট দূরত্ব প্রায় ৯০ কিঃমিঃ এবং সময় লাগে প্রায় ০৪ ঘন্টা। বর্তমানে এ পথের বিকল্প হিসেবে বরিশাল বিভাগীয় শহরে যাতায়াতের জন্য বরগুনা-বেতাগী-মির্জাগজ্ঞ-বাকেরগজ্ঞ-দপদপিয়া সড়কটি ব্যবহৃত হচ্ছে।এ পথে অপেক্ষাকৃত কম সময় লাগলেও সড়কটিতে ভারী যান চলাচল না করায় সচারচর এ পথটি ব্যবহ্রত হয়না।

 

বরগুনা ও ঝালকাঠীর মাঝে নৌ-পথে যোগাযোগ বিদ্যমান। এ ছাড়া সড়কপথে বরিশাল হয়ে ঝালকাঠীতে যাওয়া যায় যা অত্যন্ত ব্যয়বহুল ও সময় সাপেক্ষ। বরগুনা হতে সড়ক পথে কাকাচিড়া-শতকর-মঠবাড়িযা-ভান্ডারিয়া-পিরোজপুর হয়ে বাগেরহাট ও খুলনা বিভাগীয় শহরে যাতায়াতের ব্যবস্থা রয়েছে।

 

বরগুনা জেলার আন্তঃ উপজেলা যোগাযোগ ব্যবস্থা বর্তমানে বেশ উন্নত। বরগুনা জেলা সদর থেকে পায়রা নদী ফেরী পারাপারের মাধ্যমে আমতলী উপজেলায় পৌছান যায়,এতে প্রায় ০০-৫০ ঘন্টা সময় লাগে। বেতাগী উপজেলার সাথে বরগুনা সদর উপজেলার সরাসরি সড়ক যোগাযোগ রয়েছে, এতে প্রায় ০১-০০ ঘন্টা সময় লাগে। বরগুনা জেলা সদর থেকে বড়ইতলা-বাইনচটকী ফেরী পারাপারের মাধ্যমে পাথরঘাটা ও বামনা উপজেলায় সড়ক যোগাযোগ বিদ্যমান এতে সময় লাগে যথাক্রমে ০১-৩০ ঘন্টা এবং ০২.০০ ঘন্টা ।

 Image

Advertisements

About Md. Jahidul Islam (Barguna)

I am a student

Discussion

No comments yet.

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s

Follow "Barguna" on WordPress.com
%d bloggers like this: